‘ঢাকা বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা খুবই দুর্বল' | পাঠক ভাবনা | DW | 26.02.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পাঠক ভাবনা

‘ঢাকা বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা খুবই দুর্বল'

বিমান ছিনতাইয়ের ঘটনাটি ডয়চে ভেলের অনেক পাঠকের কাছেই বিশ্বাসযোগ্য মনে হয়নি৷ তবে বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থার দুর্বলতার কথাও বলেছেন কেউ কেউ৷ ডয়চে ভেলে বাংলার ফেসবুক পাতায় এসব মন্তব্য করেন তাঁরা৷

পাঠক আব্রাহামের বিমানে চড়ার অভিজ্ঞতা ২১ বছরের৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘এমন নাটক জীবনে আর দেখিনি৷ সামান্য ওষুধ, তরল খাদ্য ইত্যাদি পরীক্ষা করার পর বিমানের আসনে বসতে হয়, আর সেখানে পিস্তল নিয়ে বিমান হাইজ্যাক করলো, তা বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে৷  বিমানমন্ত্রীর কথায় বোঝা যাচ্ছে এই সাজানো নাটকটি ফ্লপ করেছে !'' পাঠক জাকির হোসেনেরও প্রায় একই কথা৷

তবে পাঠক মো. আবদুল মিয়া মনে করছেন, ঢাকা বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা খুবই দুর্বল৷ ‘‘তা না হলে তো এমন ঘটনা হওয়ার কথা নয়,'' লিখেছেন তিনি৷

মো. মামুন লিখেছেন, ‘‘পুলিশ বলছে তার কাছে খেলনা পিস্তল ছিলো, আর সেনাবাহিনী তার বিশাল কমান্ডো বাহিনী নিয়ে একজনের উপর ঝাঁপিয়ে পড়েছে৷''

শহীদ হায়দার শিবলু মনে করছেন, চকবাজারের আগুনের ঘটনায় বিপুল সংখ্যক মানুষ নিহত হওয়ার ঘটনা আড়াল করতেই এই ‘নাটক' সাজিয়েছে সরকার৷

‘‘বিমান ছিনতাইয়ের ঘটনাটি স্রেফ নাটক ছাড়া কিছুই মনে হচ্ছে না, কারণ কর্মকর্তাদের বিভিন্নজন বিভিন্ন কথা বলছেন!'' মন্তব্যটি এমএ হাসানের৷ পাঠক হাসানের সাথে একমত পাঠক ইকবাল মাহমুদ, তুষার আহমেদ, মিজান বিন ওয়াহিদুর রহমানসহ অনেকে৷

মো. আরিফ রব্বানি বেশ নিশ্চিত হয়েই লিখেছেন এভাবে, ‘‘চকবাজারের ঘটনা ধামাচাপা দিতে এটা যে সাজানো নাটক এটি বুঝতে অসুবিধে হবার কথা নয়৷'' রসিকতা করে তিনি প্রশ্ন করেছেন, ‘‘বিএনপি জামায়াত জড়িত আছে নাকি, এই প্রশ্ন এখনো কেউ করেনি?''

মো. ওমর ফারুক লিখেছেন, ‘‘বিমান ছিনতাই একটা সরকারি নাটক৷ ২০০৯ সালে পিলখানা ট্র্যাজেডির মাধ্যমে বাংলাদেশে চৌকস সেনা অফিসারদের হত্যা করে সম্প্রসারণবাদী শক্তি ও এদেশীয় দোসরেরা৷ বিডিআর গণহত্যার স্মৃতি বাংলাদেশি নাগরিকদের মানসপট থেকে মুছে দিতেই বিমান ছিনতাইয়ের নাটক তৈরি করা হলো৷ তবে সরকারি নাটকটির স্ক্রিপ্ট অনেক দূর্বল৷''

শাহজাহান সুমন মনে করেন, ‘‘বিমান ছিনতাইকারীর পুরো ব্যাপারটাই হাস্যকর৷ কিন্তু ঝরে গেলো একজন  নিরীহ সাধারণ মানুষের প্রাণ৷ হতে পারে সেনাবাহিনীর সম্মান পুনরুদ্ধারে নাটক সাজাতে গিয়ে দুর্বল চিত্রনাট্যের কারণে এই হযবরল অবস্থা!''

পাঠক তৌহিদুর রহমান বিষয়টিকে পুরোপুরি হাস্যকর ঘটনা বলেই মনে করছেন৷ তাঁর ভাষায়, ‘‘বাংলা ছবির আকালের দিনে সুন্দর একটি সিনেমার শুটিং পর্ব দেখলাম!''

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: জাহিদুল হক